Home Blog Page 2

নতুন বিজ্ঞাপনে নোভা, সঙ্গে মোশাররফ করিম

0

ছোট পর্দার প্রিয়মুখ মডেল-অভিনেত্রী নোভা ফিরোজ। ক্যারিয়ারটা শুরু করেছিলেন মডেলিং দিয়ে। এরপর তিনি দীর্ঘদিন নিয়মিতই কাজ করেছেন টিভিসি ও নাটক-টেলিছবিতে। বিভিন্ন টিভি অনুষ্ঠানে উপস্থাপনাও করেছেন।

একটি বিজ্ঞাপনী সংস্থার কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালনের অভিজ্ঞতাও আছে তার। সবকিছু নিয়েই তিনি প্রতিনিয়ত এগিয়ে চলছেন।বেশ অনেকটা সময় অনিয়মিত ছিলেন অভিনয়ে। আবারও ফিরেছেন স্বমহিমায়। কাজ করছেন টিভিসি ও নাটকে। শুধু তাই নয়, ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো চলচ্চিত্রেও নাম লিখিয়েছেন। করেছেন শুটিং।এবার নতুন এক খবর জানালেন এ অভিনেত্রী। একটি বিজ্ঞাপনের শুটিং শেষ করলেন তিনি। এখানে তাকে দেখা যাবে জনপ্রিয় অভিনেতা মোশাররফ করিমের সঙ্গে।

‘ক্যারিয়ারে অনেকবারই মোশাররফ ভাইয়ের সঙ্গে জুটি হয়ে নাটকে অভিনয় করেছি। তবে কখনোই বিজ্ঞাপনে কাজ করা হয়নি। সেই আক্ষেপটা এবার দূর হলো। আমরা প্রথমবার একসঙ্গে বিজ্ঞাপনে হাজির হতে যাচ্ছি’- যোগ করেন নোভা।

তিনি আরও জানান, টোস্টার প্রডাকশন হাউজের ব্যানারে নির্মিত এই টিভিসিটি কনক্রিট মিক্সারের। শিগগিরই টিভি চ্যানেলসহ নানা মাধ্যমে প্রচারে আসবে এটি।
প্রসঙ্গত, নোভা অভিনীত প্রথম সিনেমার নাম ‘মৃধা ভার্সেস মৃধা’। ছবিটি পরিচালনা করছেন রনি ভৌমিক।এ সিনেমায় নোভার সঙ্গে দেখা যাবে নতুন প্রজন্মের আলোচিত চিত্রনায়ক সিয়াম আহমেদকে। আরও থাকছেন তারিক আনাম খান, নিমা রহমান, সানজিদা প্রীতি প্রমুখ।

নিলয়-ফারিয়ার সংসারে শাশুড়ির বিড়ম্বনা

0

ঈদের জন্য নির্মিত হলো রোমান্টিক-কমেডি ঘরানার নাটক ‘জামাই VS শাশুড়ি’ । রাফসানের গল্পে নাটকটি পরিচালনা করেছেন জিয়াউদ্দিন আলম। গত ২৫-২৬ মার্চ টানা দুদিন উত্তরার বিভিন্ন মনোরম লোকেশনে নাটকটির শুটিং হয়েছে।

নাটকের গল্পের শুরুতে দেখা যাবে শুভ গ্রামের শিক্ষিত ছেলে। ঢাকা শহরে মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানিতে ভালো একটা চাকরি করে। সে স্বভাবে সহজ, সরল। শুভ শহরের মেয়ে বিয়ে করবে না। তার বাবার পছন্দে গ্রামের শান্ত, শিক্ষিত, ভদ্র, একটি মেয়ে বিয়ে করতে চায়।

সেই মোতাবেক নীলা নামের এক মেয়েকে বিয়ে করে নিয়ে আসে ঢাকায়। এদিকে নীলাকে খুব ভালোবাসে তার মা। মেয়েকে একা কখনও কোথাও যেতে দেননি। মেয়ের বিয়ের আগেই জামাই বাড়ির লোকদের শর্ত দিয়েছেন, ঢাকা শহরে মেয়েকে একা যেতে দেবেন না।

সেই শর্তে বিয়ে করেছে শুভ। তার স্ত্রীর সঙ্গে আসে শাশুড়ি। এখান থেকেই মূলত গল্পের শুরু। মেয়ের জামাইয়ের সঙ্গে নানা রকম ঘটনা ঘটাতে থাকেন নীলার মা।এ নাটকে জুটি বেঁধে অভিনয় করেন নিলয় আলমগীর ও ফারিয়া শাহরিন। এখানে নিলয়ের শাশুড়ি চরিত্রে দেখা যাবে মুনীরা মিঠুকে।

নাটকটি নিয়ে ফারিয়া বলেন, ‘আলম ভাইয়ের সাথে আট বছর আগে আরফান নিশোর বিপরীতে ‘মেঘলা রৌদ্দুর’ নামের একটি নাটকে কাজ করেছিলাম। আট বছর পরে আবারও আলম ভাইয়ের পরিচালনায় কাজ করলাম। খুবই সুন্দর একটি গল্প। মজা করে কাজ করেছি। আশা করছি দর্শকের ভালো লাগবে।’

রোহিঙ্গা শিবিরে জোরদার হয়েছে পুনর্বাসনসহ জরুরি কার্যক্রম

0

কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গা শিবিরে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর জন্য পুনর্বাসন কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। সরকারের সহায়তায় ব্র্যাকসহ অন্যান্য বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ও দাতা সংস্থাগুলোর সমন্বিত উদ্যোগে এগিয়ে চলছে খাবার বিতরণ, বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ, শেল্টার নির্মাণসহ অন্যান্য জরুরি কার্যক্রম।

সোমবার (২৯ মার্চ) ব্র্যাকের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, উখিয়ার কুতুপালংয়ের বালুখালি এলাকার রোহিঙ্গা শিবিরের ৮ ও ৯ নম্বর ক্যাম্পে ব্র্যাকের পক্ষ থেকে আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত রোহিঙ্গাদের সহায়তায় ৩৪ হাজার লিটার খাবার পানি বিতরণ, ৪৯টি গভীর নলকূপ, ২৩৯টি অগভীর নলকূপ সংস্কার এবং ৩১৯টি ল্যাট্রিন মেরামত করা হয়।

শনিবার (২৭ মার্চ) আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত বালুখালির ৯ নম্বর ক্যাম্প পরিদর্শন করেন ব্র্যাকের মানবিক সহায়তা কর্মসূচির (এইচসিএমপি) এরিয়া ডিরেক্টর হাসিনা আখতার হকসহ কর্মসূচির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। এর আগে গত ২৪ মার্চ ওই ক্যাম্প পরিদর্শন করেন ব্র্যাকের এইচসিএমপি’র কর্মসূচি প্রধান (ভারপ্রাপ্ত) রবার্টস সিলা মুথিনিসহ সংশ্লিষ্টরা। আজ সোমবার ক্ষতিগ্রস্ত বিভিন্ন ক্যাস্প পরিদর্শন করেন ব্র্যাকের এইচসিএমপি’র অপারেশন হেড সাহানা হায়াতসহ সংশ্লিষ্ট প্রতিনিধিরা।

ব্র্যাকের মানবিক সহায়তা কর্মসূচির এরিয়া ডিরেক্টর হাসিনা আখতার হক বলেন, সম্প্রতি রোহিঙ্গা শিবিরে আগুন লাগার ঘটনা একটা বড় দুর্যোগ। এই ধরনের দুর্যোগে ব্র্যাক শুরু থেকে সরকারের সহযোগিতায় অন্যান্য সংস্থার সঙ্গে সমন্বয় করে কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। আমরা খাবার বিতরণ, বিশুদ্ধ পানি সরবরাহসহ বিভিন্ন ধরনের জরুরি কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছি। এর পাশাপাশি নারী ও শিশুদের সুরক্ষার বিষয়টি বেশি গুরুত্ব দিচ্ছি।

জাতিসংঘের শরণার্থী-বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর সূত্র জানায়, অগ্নিকাণ্ডের পূর্বে ক্ষতিগ্রস্ত রোহিঙ্গা শিবিরে বাস করছিল প্রায় ১ লাখ ২৬ হাজার ৩৮১ জন মানুষ। এনজিওদের সমন্বয়কারী সংস্থা ইন্টার সেক্টর কো-অর্ডিনেশন গ্রুপের (আইএসসিজি) সূত্র অনুযায়ী, রোহিঙ্গা শিবিরে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় প্রায় ১০ হাজার ঘর পুড়ে গেছে। গৃহহীন হয়েছে প্রায় ৪৫ হাজার মানুষ।উল্লেখ্য, এর আগে গত ২২ মার্চ বিকেলে কক্সবাজারের বালুখালির রোহিঙ্গা শিবিরের ৮ ডাব্লিউ, ৮ই, ৯ ও ১০ নম্বর শিবিরে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

ভাত দিয়েই তৈরি করুন ত্বক ফর্সাকারী ক্রিম

জাপানিদের ত্বক দেখলে নিশ্চয়ই আফসোস হয়! তাদের সবার ত্বকই দাগহীন, ফর্সা ও কোমল। এমনকি তাদের ত্বক এতোটাই মসৃণ এবং টানটান যে, বয়স্কদেরকে দেখলেও কিশোরী মনে হয়।

এজন্য অবশ্য বিশেষ নিয়ম-কানুন মেনে ত্বকের যত্ন নিয়ে থাকেন তারা। জানলে অবাক হবেন, জাপানিরা কেমিকেলযুক্ত প্রসাধনী নয় বরং প্রাকৃতিক উপাদান দিয়েই ত্বকের যত্ন নেন।

বাঙালি মানেই ভাত পাগল। একদিন ভাত না খেলে কারো দিন ভালো কাটে না। তাই সবার ঘরেই প্রতিদিন ভাত রান্না হয়ে থাকে। জানেন কি, ভাত ব্যবহারেই ত্বক হতে পারে ফর্সা ও দাগহীন।

চালে ও ভাতে থাকা বিভিন্ন পুষ্টি উপাদান ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রেখে ত্বককে ফর্সা ও দাগহীন করতে সাহায্য করে। এ ছাড়াও ত্বকের তৈলাক্ত ভাব কমায়। ভাত দিয়ে তৈরি ফেসপ্যাক মুখের বড় লোমকূপের সমস্যাও দূর করে।

চালে ফেরিউলিক অ্যাসিড থাকে। এটি একটি অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, যা ত্বককে ফ্রি র্যাডিকেলের হাত থেকে রক্ষা করে। ত্বকের মৃত কোষ দূর করে নতুন কোষ উৎপাদনে সাহায্য করে ভাতে থাকা পুষ্টিগুণ।

এ ছাড়াও ত্বকের রক্ত প্রবাহকে উন্নত করে রাইস ফেস ক্রিম। এটি অ্যান্টি-এজিং হিসেবে কাজ করে, ফলে বয়সের ছাপ পড়ে না মুখে। শুধু ত্বক নয় চুলের জন্যও ভাত, চালের পানি, ভাতের মাড় এসব উপাদান খুবই উপকারী। এবার তবে জেনে নিন ভাত দিয়ে হোয়াইটেনিং ক্রিম তৈরি করবেন যেভাবে-

এমা স্টোনের সংসারে খুশির বন্যা

0

প্রথম সন্তানের মা হয়েছেন হলিউড অভিনেত্রী এমা স্টোন। অভিনেত্রী ও তার স্বামী ডেভ ম্যাককারির জীবনে এখন বইছে খুশির বন্যা। তবে নবজাতক ছেলে না মেয়ে এখনও তা জানা যায়নি।হলিউড সংবাদ মাধ্যম ইউএস উইকলি জানিয়েছে এমার মা হওয়ার খবরটি।

তারা বলছে, গেল ১৩ মার্চ লস অ্যাঞ্জেলসের একটি বেসরকারি হাসপাতালে সন্তানের জন্ম দিয়েছেন এমা স্টোন। এখনও আনু্ষ্ঠানিকভাবে মা হওয়ার খবর জানানো হয়নি অভিনেত্রী বা তার পক্ষ থেকে।

জানুয়ারি মাসে এই সংবাদমাধ্যমকেই একান্ত সাক্ষাৎকারে মা হতে যাচ্ছেন বলে এমা নিজেই খবর দিয়েছিলেন।সেই সপ্তাহেই পাপারাজ্জিদের ক্যামেরায় ধরা পড়ে এমার বেবি বাম্পের ছবিও। বন্ধুদের সঙ্গে লস অ্যাঞ্জেলসে কালো টপ আর জিনসে লেন্সবন্দি হয়েছিলেন অভিনেত্রী।

এই প্রজন্মের নায়িকাদের মধ্যে অন্যতম এমা স্টোন। ২০১৬ সালে এমা এবং তার স্বামী ডেভের প্রথম দেখা ও আলাপ। স্যাটার ডে নাইট লাইভ হোস্ট করছিলেন এমা, এবং শো-য়ের লেখক ছিল ডেভ ম্যাককারি। দু-বছর পর এমাকে প্রেম প্রস্তাব দেন ডেভ।

এর আগে ‘দ্য অ্যামেজিং স্পাইডারম্যান’ কো-স্টার অ্যান্ড্রু গারফিল্ডের সঙ্গে প্রণয় ডোরে আবদ্ধ ছিলেন এমা। পাঁচ বছরের সেই সম্পর্ক ভেঙে যায় ২০১৫ সালে। এরপর যখন একাকীত্বে ভুগছিলেন তখনই জীবনে আসে ডেভ। পরিচয় থেকে প্রণয় এবং ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে আনুষ্ঠানিকভাবে বাগদান সারেন তারা। পরের বছর হয় বিয়ে।

কাঁচা আমের মজাদার পাতুরির রেসিপি

গ্রীষ্মকাল মানেই আমের মৌসুম। বাজারে এখন কাঁচা আম পাওয়া যাচ্ছে। আর কাঁচা আম দেখলেই সবার জিভে জল চলে আসে। আচার থেকে শুরু করে মজাদার অনেক পদ তৈরি করা যায় কাঁচা আম দিয়ে।

কাঁচা আম যখন লবণ, মরিচ, সরিষা দিয়ে মাখানো হয়; তখন এর স্বাদ সবাইকে মুগ্ধ করে দেয়। ঠিক তেমনই কাঁচা আমের মোরব্বা, চাটনিসহ বিভিন্ন পদও মুখোরোচক।

কখনো কি আম পাতুরি খেয়েছেন? টক, ঝাল ও মিষ্টি স্বাদের আম পাতুরি একবার খেলে এর স্বাদ সবসময় মুখে লেগে থাকবে। আর এটি তৈরি করাও অনেক সহজ। চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক রেসিপি-

উপকরণ
১. আম পাতলা কুচি ২ কাপ
২. নারকেল ও সরিষা বাটা ২ টেবিল চামচ
৩. পেঁয়াজ কুচি ২ টেবিল চামচ
৪. কাঁচা মরিচ ফালি ৪-৫টি
৫. সরিষার তেল ২ টেবিল চামচ
৬. লবণ স্বাদমতো
৭. চিনি ১ টেবিল চামচ
৮. আমের খোল ৪টি
৯. কলাপাতা প্রয়োজনমতো
১০. বাঁধার জন্য সুতা

করোনা ভ্যাকসিনে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হলে যা করবেন

মহামারী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে বাঁচতে পৃথিবীর অনেক দেশেই কোভিড-১৯ প্রতিরোধী টিকা প্রদান করা শুরু হয়েছে। বাংলাদেশেও গত ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট থেকে উৎপাদিত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার উদ্ভাবিত টিকার মাধ্যমে গণ টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়েছে। তবে টিকা নিলে কোনো ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হতে পারে ও শারীরিকভাবে অসুস্থতা বোধ করতে পারেন মনে করে প্রথমদিকে অনেকে টিকা নিতে ভয় পাচ্ছিলেন এবং এ নিয়ে জনমনে কিছুটা সংশয়ও কাজ করছিল। কিন্তু টিকা নিয়ে আসলে এরকম তীব্র ভয়ের কোনো কারণ নেই। প্রথমদিকের টিকা নিয়ে অযথা ভীতি এখন অনেকটাই কেটে গিয়েছে।

বলা যায়, উৎসাহ নিয়েই মানুষ এখন টিকা গ্রহণ করছেন। কোভিড-১৯ এর মতো যেকোনো সংক্রামক ব্যাধি নির্মূলের জন্য টিকাই হলো সবচেয়ে নিরাপদ ও কার্যকরী ব্যবস্থা। অক্সফোর্ডের গবেষণা থেকে দেখা গেছে, তাদের আবিষ্কৃত টিকা নেওয়ার পর তেমন কোনো জটিলতা সৃষ্টি হয় না। অর্থাৎ অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার তীব্র পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার রেকর্ড নেই বললেই চলে। কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন নেওয়ার পর অন্যান্য টিকার মতোই স্বল্প সময়ের জন্য শুধু বাহুতে টিকা দেওয়ার স্থান কিছুটা ফুলে যাওয়া কিংবা চুলকানি, মৃদু শরীর ব্যথা, মাংসপেশী ও সন্ধিতে ব্যথা, কাঁপুনিসহ হালকা জ্বর কিংবা জ্বর-জ্বর ভাব, ক্লান্তিভাব, অবসাদ, মাথা ব্যথা, বমি ভাব প্রভৃতি হতে পারে।

কারো কারো অবশ্য হালকা অ্যালার্জিক প্রতিক্রিয়াও হচ্ছে। চুলকানির পাশাপাশি চামড়ায় হালকা সাময়িক ফুসকুড়ির মতো দেখা দিচ্ছে। ক্ষেত্রবিশেষে সপ্তাহখানেক পরে কোনো কোনো ক্ষেত্রে বাহুতে টিকা দেওয়ার জায়গা ফুলে যেতে পারে। বগলের নিচে লসিকা গ্রন্থি ফুলে যাওয়ার নজিরও রয়েছে বিশ্বের কোথাও কোথাও। তবে সবার ক্ষেত্রেই যে সমস্যাগুলো দেখা দেবে বিষয়টি এমনও নয়। তদুপরি এই মামুলি সমস্যাগুলো পরবর্তীতে এমনিতেই ঠিক হয়ে যায় এবং এসব প্রতিকারের ব্যবস্থা সাধারণ চিকিৎসায়ই সম্ভব। এজন্য কারো হাসপাতালে ভর্তি হওয়ারও দরকার নেই।

সাধারণত ১২ থেকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে এসব উপসর্গ দেখা দেয়। এগুলো কিন্তু সাময়িক এবং দুই-এক দিনের মধ্যেই এসব উপসর্গ চলে যায়। এখানে উল্লেখ্য, বয়স্কদের চেয়ে অপেক্ষাকৃত কম বয়সীদের এ ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হচ্ছে বেশি। এর কারণ হলো বয়সের সঙ্গে সঙ্গে আমাদের অনাক্রম্য তন্ত্রের রেসপন্স কিছুটা দুর্বল হয়ে আসে। আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হলো টিকা নেওয়ার পর মৃদু বা সামান্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া প্রমাণ করে যে শরীরের অনাক্রম্য তন্ত্র সক্রিয় হয়েছে। প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস প্রতিরোধে দেশব্যাপী টিকাদান কর্মসূচি শুরুর পর গত ১৩ মার্চ পর্যন্ত আমাদের দেশে টিকা নিয়েছেন ৪৩ লাখ ৪ হাজার ২৫৯ জন। এর মধ্যে মাত্র ৮৮৫ জনের শরীরে মৃদু ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াগুলো দেখা গেছে এবং কারো ক্ষেত্রেই কোনো তীব্র ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া পরিলক্ষিত হয়নি।

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া মোকাবেলা করার জন্য টিকা নেওয়ার পর বাহুতে ইনজেকশনের জায়গায় ব্যথা বেশি হলে পরিষ্কার কাপড় ঠান্ডা পানিতে ভিজিয়ে প্রয়োগ করতে পারেন। এতে আরাম বোধ করবেন। এ ব্যথা দুই থেকে তিন দিনের মধ্যেই ভালো হয়ে যায়। এ ছাড়া খুব বেশি ব্যথা কিংবা জ্বর এলে জ্বর ও ব্যথানাশক হিসেবে প্যারাসিটামল জাতীয় ওষুধও সেবন করতে পারেন। পাশাপাশি হাতের হালকা ব্যায়ামও করতে পারেন। টিকা গ্রহণের পর যদি অবসন্নতা বা ক্লান্তি বোধ হতে থাকে, তবে পর্যাপ্ত বিশ্রাম নিন। দরকার হলে একদিন ছুটি নিতে পারেন। শুয়ে থাকলেও মাঝেমধ্যে উঠে সামান্য হাঁটাহাঁটি করুন। টিকা নেওয়ার পর চাহিদা মাফিক পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করুন।

সেইসাথে অন্যান্য তরল জাতীয় খাবারও গ্রহণ করতে পারেন। কোনো অ্যালার্জি দেখা দিলে অ্যান্টি-হিস্টামিনজাতীয় ওষুধ সেবন করা যেতে পারে। তবে অ্যানাফাইল্যাক্সিস জাতীয় তীব্র অ্যালার্জিক প্রতিক্রিয়ার ঘটনা খুবই বিরল। আমাদের দেশে এমনটা এখনো দেখা না গেলেও কিছু দেশে দুই-এক জনের শরীরে এরকম প্রতিক্রিয়া হয়েছে। যদিও তা যথাযথভাবেই নিরাময় করা সম্ভব হয়েছে। যদি কারো এরকম তীব্র মাত্রায় অপ্রত্যাশিতভাবে কোনো অ্যালার্জিক প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়, সেক্ষেত্রে দেরী না করে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া আবশ্যক। টিকা নেওয়ার পর কারো লসিকাগ্রন্থি ফুলে গেলে সেক্ষেত্রেও চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত। টিকা নেওয়ার পর টিকাকেন্দ্রের বিশ্রামকক্ষে ৩০ মিনিট পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। এসময় অকারণে ছোটাছুটি করবেন না এবং অতিরিক্ত মানসিক চাপও নেবেন না।

উল্লেখ্য, আপাতত গর্ভবতী মা ও ১৮ বছরের কম বয়সীদের ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে না। ভ্যাকসিন নিলেও সবাইকে মাস্ক পরা, হাত ধোয়াসহ সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। কারণ ভ্যাকসিনের পরিপূর্ণ কার্যকারিতার জন্য অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রোজেনেকার ভ্যাকসিনের পূর্ণাঙ্গ দুই ডোজই গ্রহণ করতে হবে এবং দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার পরে কমপক্ষে আর দুই সপ্তাহ অপেক্ষা করতে হবে। আসলে টিকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নিয়ে কোনো দুশ্চিন্তা না করে, করোনা সংক্রমণ থেকে সুরক্ষা পেতে সবারই টিকা নেওয়া উচিত। তাই করোনার টিকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নিয়ে উৎকণ্ঠা কিংবা উদ্বেগ থাকলে তা ঝেরে ফেলে টিকা গ্রহণ করে নিজে সুরক্ষিত থাকুন এবং সুরক্ষিত রাখুন গোটা সমাজকে। তবেই আমরা ফিরে পেতে পারি করোনামুক্ত সময়ের আস্বাদ ও নিরাপদ রাখতে পারি সবাইকে।

আজিমপুর কবরস্থানে চুক্তিভিত্তিক মৌসুমি ভিক্ষুকদের ভিড়

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জের মৃত আবদুল আজিজের ছেলে পঞ্চাশোর্ধ্ব আবদুল হামিদ একজন প্রতিবন্ধী। সারাবছর গ্রামে থাকলেও আজ (২৮ মার্চ) পবিত্র শবে বরাতের দিনে বাড়তি উপার্জনের আশায় স্ত্রী ও সন্তানসহ রাজধানীর আজিমপুর কবরস্থান এলাকায় এসেছেন। সকাল সকাল আসতে না পারায় কবরস্থানের গেটের কাছাকাছি জায়গা পাননি। তাই মেয়র হানিফ মসজিদের অদূরে রাস্তার বসে জায়গা নিয়ে বসে আছেন।

দুপুরে এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে আবদুল হামিদ বলেন, তিনি একজন শারীরিক প্রতিবন্ধী। কিছুদিন আগে সরকারি কার্ড পেয়েছেন। তবে ভাতা এখনও পাননি। স্ত্রী ও তিন সন্তান নিয়ে চলতে কষ্ট হয়। বাড়তি উপার্জনের আশায় শবে বরাত উপলক্ষে ঢাকায় এসেছেন।

আবদুল হামিদ জানান, গতবছর করোনার কারণে আসতে পারেননি। এর আগের বছর একরাতে তিন হাজার টাকা সাহায্য পেয়েছিলেন। আজও বাড়তি আয়ের আশায় ছুটে এসেছেন।

আজ পবিত্র শবে বরাত। মহিমান্বিত এ রজনীতে রাজধানীর আজিমপুর কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত মানুষগুলোর কবর জিয়ারত করতে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে হাজারও স্বজনরা ছুটে আসেন। কবর জিয়ারত করে যাওয়া আসার সময় তারা হতদরিদ্র ও ভিক্ষুকদের মুক্তহস্তে দান করেন।

আজিমপুর কবরস্থানে নিয়মিত ভিক্ষুকরা ছাড়াও শবে বরাতসহ বিভিন্ন মুসলিম উৎসবের দিনে মৌসুমি ভিক্ষুকদের ভিড় বাড়ে। নিয়মিত ভিক্ষা করেন এমন কয়েকজনের সাথে কথা বলে জানা যায়, তারা দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে চুক্তিভিত্তিতে মৌসুমি ভিক্ষুকদের নিয়ে আসেন। শবে বরাতের দিন সকাল থেকে পরদিন ভোর পর্যন্ত যা রোজগার হয় সেখান থেকে অর্ধেক টাকা মৌসুমি ভিক্ষুককে দিয়ে বাকি অর্ধেক নিয়মিত ভিক্ষুকরা নিয়ে থাকেন।

কবরস্থানের গেটের আশেপাশে নিয়মিত ভিক্ষুকরা অপরিচিত ভিক্ষুকদের ঘেঁষতেও দেন না। শবে বরাতের কয়েকদিন আগে থেকেই নিয়মিত ভিক্ষুকরা নিজেরা আলোচনা করে কবরস্থানের উত্তর ও দক্ষিণ গেটের কে কোন জায়গায় বসবে তা নির্ধারণ করেন।

সরেজমিনে দেখা গেছে, আজিমপুর বাসস্ট্যান্ড থেকে আজিমপুর পুরাতন ও নতুন কবরস্থানের গেট, নিউমার্কেটের অদূরে কবরস্থানের গেটের আশপাশে বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে অবস্থান নিয়েছেন নিয়মিত ও চুক্তিভিত্তিক ভিক্ষুকরা। বেলা গড়ানোর সাথে সাথে ভিক্ষুকদের ভিড় ক্রমেই বাড়তে দেখা যায়।

টাঙ্গাইলে পুকুরে গ্রেনেড, উৎসুক মানুষের ভিড়

পরিত্যক্ত সাদৃশ্য গ্রেনেড বোমা। পুকুর থেকে উদ্ধার। আর এখানেই কৌতূহল। এক নজর দেখতে শতশত মানুষ ভিড় করছেন। এমনি এক ঘটনা ঘটেছে টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলার সংগ্রামপুর ইউনিয়নের পাহাড়ী অঞ্চলের নগর গ্রামে।

আজ সোমবার (২৮ মার্চ) দুপুরে উপজেলার ওই গ্রামের আবুল (বিএসসি) নামে এক শিক্ষকের বাড়ির পাশের একটি পুকুর থেকে পরিত্যক্ত গ্রেনেডটি উদ্ধার করেন থানা পুলিশ। তবে এখনো নিশ্চিত না এটা গ্রেনেড। অনেকের ধারণা এটি গ্রেনেড (সাদৃশ্য) বস্তু।

স্থানীয়রা জানান- ‘কবির নামের এক লোক ওই পুকুরে কোদাল দিয়ে খনন করছিল। এসময় হঠাৎ করেই কোদালের মাথায় গ্রেনেটটি উঠে আসে। এরপর আশপাশের লোকজন দেখতে ভিড় করেন। পরে পুলিশকে জানালে পরিত্যক্ত গ্রেনেডটি থানায় নিয়ে যায়।’

সাদৃশ্য গ্রেনেড বোমা উদ্ধারের বিষয়টি উপজেলার সংগ্রামপুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম মিয়া সত্যতা নিশ্চিত করে জানান- ‘ধারণা করা হচ্ছে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় এ গ্রেনেট বোমাটি পুকুরে ফেলেছে।’

এ বিষয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গোপালপুর সার্কেল আমীর খসরু জানান- ‘সোমবার দুপুরে উপজেলার নগর গ্রামের একটি পুকুর থেকে পরিত্যক্ত গ্রেনেড (সাদৃশ্য) বস্তুটি উদ্ধার করে ঘাটাইল থানায় আনা হয়েছে। এখন বিশেষজ্ঞ টিম এসে যাচাই বাচাই করে দেখবে এটা আসলে কি। নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত বলা যাচ্ছে না।’

চট্টগ্রামে র’ণক্ষেত্র, পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘ’র্ষ, আ’গুন, ‍গু’লি

0

বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির পূর্ব ঘো’ষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে চট্টগ্রামে নগর বিএনপি বিক্ষোভ সমাবেশ করতে গেলে পুলিশের সঙ্গে সং’ঘর্ষ হয়। এসময় বিএনপির ১৫ নেতাকর্মী গু’লিবিদ্ধ এবং অর্ধশত নেতাকর্মী আহত হয়েছে বলে দাবি বিএনপির। আজ সোমবার (২৯ মার্চ) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের সামনের সড়কে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এ সময় ককটেল বি’স্ফোরণ ও ইটপাট’কেল নি’ক্ষেপ করেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। পুলিশও টি’য়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সংঘ’র্ষ চলাকালে রাস্তায় টেবিলে ও মোটরসাইকেলে আ’গুন দেওয়া হয়। নগর বিএনপির দপ্তর সম্পাদক ইদ্রিস আলী জানান, বিক্ষোভ সমাবেশে অংশ নিতে নগরের বিভিন্ন এলাকা থেকে নেতাকর্মীরা কার্যালয়ের সামনে আসতে চাইলে পুলিশ বাধা দেয় এবং নেতাকর্মীদের লক্ষ করে গু’লি ছুড়ে। পুলিশের হা’মলায় ১৫জন নেতাকর্মী গু’লিবিদ্ধ এবং অর্ধ’শত নেতাকর্মী আহত হয়েছেন বলেও দাবি করেন তিনি।

এর আগে শুক্রবার (২৬ মার্চ) স্বাধীনতা দিবসে দেশের বিভিন্ন স্থানে মোদিবিরোধী বিক্ষোভ মিছিলে হা’মলা-সংঘ’র্ষে নিহতের ঘটনার প্রতিবাদে সোম ও মঙ্গলবার (২৯ ও ৩০ মার্চ) দুদিনের বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিলের ঘোষণা দেয় বিএনপি।